খুসকি আর চুলের ডগা ফাটা থেকে মুক্তি পান – best dandruff treatment in Bengali

hair split end

চুলে সস্তা, অত্যুজ্জ্বল রঙ করা অথবা তাপ প্রয়ােগ করে চুল কুঞ্চিত বা সােজা করার ফলে চুল ডগা থেকে চিরে দু’ভাগ হয়ে যায়। অত্যধিক সময় প্রখর রােদের মধ্যে থাকা, দীর্ঘস্থায়ী কোনও অসুখ অথবা ভিজে চুলে ব্রাশ চালানাে, বা উত্তপ্ত রােলার ও ড্রায়ারের অত্যধিক প্রয়ােগ চুলের সাংঘাতিক ক্ষতি করে। চুলের প্রাকৃতিক তেল (সেবাম)-এর অভাবে চুলের ডগা ইংরেজ ‘ওয়াই’ অক্ষরের মতাে ফেটে যায়। চুল যত লম্বা, তার ডগা সেবাম-এর উৎস থেকে ততদূরে এবং সঠিক যত্ন না নিলে চুল খুব তাড়াতাড়ি ফেটে যায়। এভাবে তৈলাক্ত চুলের ডগাও ফেটে যেতে পারে। চুল একবার চিরে গেলে তাকে আর সরিয়ে ঠিক করা যায় না। কিন্তু, চিরে যাওয়ার কারণগুলি খুঁজে বার করে সেগুলির চিকিৎসা করলে চুল ফাটা সহজেই নিবারণ করা সম্ভব। এছাড়া প্রতি দুসপ্তাহ অন্তর ফাটা। ডগা ১/২ ইঞ্চি কেটে দেওয়া দরকার। না হলে চুলের চিড় ক্রমাগত ওপরে উঠে শেষ পর্যন্ত চুলের গােড়া অবধি পৌঁছে যায়। ফেটে। যাওয়া ডগা কিছুদিন অন্তর কেটে দিলে আস্ত চুল ক্রমশ নীচের দিকে নেমে যায়। ছােট চুলের ডগা কাটার অসুবিধে থাকলে শুধুমাত্র চিরে যাওয়া ডগায় কন্ডিশনার প্রয়ােগ করে সেগুলিকে মসৃণ রাখা প্রয়ােজন। এর ফলে চিড়ের দৈর্ঘ্য আর বাড়ে না।

ডগা ফেটে যাওয়া প্রতিরােধ

  • ১ চামচ ভিনিগার, ১ চামচ পরিমাণ গ্লিসারিন, ১ টা ডিম ও ২ চামচ ক্যাস্টর অয়েল মিশিয়ে মাথায় লাগান। একঘন্টা পর চুল ভালভাবে ধুয়ে নিন।
  • শােওয়ার আগে ঈষদুষ্ণ নারকেল তেল আঙুলের ডগা দিয়ে মাথায় ভালভাবে ম্যাসাজ করুন। পরে চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়ান যাতে তেল সমগ্র অংশে ছড়িয়ে যায়। এবার গরমজলে একটা টাওয়েল ভিজিয়ে নিংড়ে নিয়ে মাথায় মিনিট দশেক জড়িয়ে রাখুন। পরের দিন ১০০ গ্রাম টক দই, ১টি পাতিলেবুর রস, ১টি ডিম একসঙ্গে মিশিয়ে মাথায় মাখুন। ঘন্টা দুয়েক পর ভেষজ শ্যাম্পুর সাহায্যে। মাথা ধুয়ে নিন। সপ্তাহে এক-দুদিন ব্যবহার করলে চুলের ডগা ফাটা রােধ হয় ও চুল পড়া আটকায়।
  • সপ্তাহে একবার ডিম, দই, আমলা ও শিকাকাই দিয়ে প্যাক তৈরি করে চুলে লাগালে কিংবা মধু ও দই মিশিয়ে লাগালে চুল ফাটা কমে।

খুসকি বা dandruff

করােটি ত্বকের মৃত কোষবাহিত বহিঃত্বক পাতলা মােমের মতাে ছােট ছােট টুকরাে হয়ে চুলের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে। সাদা মােমের মতাে দেখতে মৃত ত্বকের টুকরােগুলিকেই ড্যানড্রাফ বা খুসকি বলা হয়। আমাদের সারা শরীরেই এইভাবে মৃত ত্বক ঝরে যায়। এটি প্রাকৃতিক নিয়ম। | স্ক্যালপের ওপর এইরকম মৃত ত্বকের পড়তে সাহায্য করে। অনেক সময় মাথার ত্বকে এক ধরনের জীবাণু সংক্রমণের ফলে টাক পড়ে। এক্ষেত্রে চর্মরােগ বিশেষজ্ঞের সাহায্য নেওয়া অবশ্য প্রয়ােজন। এছাড়া শক্ত করে চুল বাঁধার ফলে প্যাপিলার স্থানচ্যুতি ঘটায়। প্যাপিলা শুকিয়ে গিয়ে নতুন চুল তৈরি বন্ধ হয়ে যাওয়ায় টাক পড়তে পারে।

ধানি পেঁয়াজ বেটে চুল উঠে যাওয়া অংশে লাগাবেন এটাই সবথেকে best dandruff treatment, ৩০ মিনিট পর গােলমরিচ বেটে সামান্য সাদা লবণ দিয়ে একই জায়গায় লাগান। মুলতানি মাটির সঙ্গে ধুতরাে বীজের গুঁড়াে মিশিয়ে মাথায় লাগালে টাক পড়বে না।

0 0 votes
Article Rating
Subscribe
Notify of
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments